বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের ল্যাটিচিউড ও লঙ্গিচিউড কত?

Mujib 100 Quiz By Priyo

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পারিবারিক কবরস্থানের বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের ল্যাটিচিউড ও লঙ্গিচিউড কত? ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পরের দিন ১৬ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার পাশে সমাহিত করা হয়। পরবর্তী সময়ে এ কবরস্থানকে ঘিরে গড়ে তোলা হয় সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স। এই কমপ্লেক্সে রয়েছে একটি পাঠাগার, জাদুঘর, গবেষণাকেন্দ্র, প্রদর্শনী কেন্দ্র, উন্মুক্ত মঞ্চ, পাবলিক প্লাজা, প্রশাসনিক ভবন, ক্যাফেটেরিয়া, বকুলতলা চত্বর ও স্যুভেনির কর্নার। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ঘুরতে যান এ সমাধিসৌধে। বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের ল্যাটিচিউড ও লঙ্গিচিউড কত?

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে কিুইজ প্রকিযোগিতার আয়োজন করা রয়েছে। এই কুইজ ১০০ দিন ধরে চলবে। প্রিয় ডট কম এই কুইজ প্রতিযোগিতাটি পরিচালনা করছে। প্রতিদিন ১০০জন করে বিজয়ী হবেন এবং অনেক পুরুস্কার রয়েছে।

বঙ্গবন্ধু কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করা খুবই সহজ। আপনিও চাইলে কুইজের উত্তর দিয়ে জিতে নিতে পারেন ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন সহ ১০০ জিবি মোবাইল ডাটা। প্রিয় কুইজে অংশ নিতে এবং প্রশ্নের উত্তর দিতে মাত্র ৩০ সেকেন্ড সময় লাগবে। তাই আর দেরি না করে আজকের প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দিন।

২৫-০২-২০২১, আজকের প্রশ্ন হলো:

বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের ল্যাটিচিউড ও লঙ্গিচিউড কত?

১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের পরের দিন ১৬ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার পাশে সমাহিত করা হয়। পরবর্তী সময়ে এ কবরস্থানকে ঘিরে গড়ে তোলা হয় সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স। এই কমপ্লেক্সে রয়েছে একটি পাঠাগার, জাদুঘর, গবেষণাকেন্দ্র, প্রদর্শনী কেন্দ্র, উন্মুক্ত মঞ্চ, পাবলিক প্লাজা, প্রশাসনিক ভবন, ক্যাফেটেরিয়া, বকুলতলা চত্বর ও স্যুভেনির কর্নার। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ঘুরতে যান এ সমাধিসৌধে। বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের ল্যাটিচিউড ও লঙ্গিচিউড কত?

  1. 22.906333, 89.896283 (Tungipara)
  2. 22.910686, 89.899343 (Tungipara Police Station, Tungipara)
  3. 22.898339, 89.893449 (Sheikh Rasel Shishu Park)
  4. 22.884749, 89.899267 (Bangabandhu memorial boat station, boat station, Patgati, Tungipara)

উত্তরঃ 22.906333, 89.896283. ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের বুলেটে মৃত্যুহীন প্রাণ নিয়ে জন্মমাটি টুঙ্গীপাড়ায় ফিরে আসেন তিনি। পরদিন পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার পাশে তাকে সমাহিত করা হয়। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। সাবেক রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ ১৯৯৯ সালের ১৭ মার্চ সমাধিসৌধের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে ৩৮.৩০ একরজমির ওপর ১৭ কোটি ১১ লাখ ৮৮ হাজার টাকা ব্যয়ে সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের সহযোগিতায় প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ এ সমাধিসৌধ নির্মাণ করে। টুঙ্গীপাড়ার বাইগার নদীর পাড়ে গড়ে উঠেছে এ মাজার কমপ্লেক্স। লাল সিরামিক ইট আর সাদা-কালো টাইলস দিয়ে গ্রিক স্থাপত্য শিল্পের আদলে নির্মিত সৌধের কারুকার্যে ফুটে উঠেছে বেদনার চিহ্ন। কমপ্লেক্সের সামনের, দু’পাশের উদ্যান পেরোনোর পরই বঙ্গবন্ধুর কবর। পাশেই তার বাবা-মায়ের কবর। আপনি কি জানেন যে শুধৃ মাত্র শেয়ার করেও আপনি প্রাইজ জিতে নিতে পারবেন। তাই আর দেরি না করে এখানে ক্লিক করে এখুনই শেয়ার করুন

কীভাবে প্রিয় / বঙ্গবন্ধু কুইজে অংশ নিবেন?

বঙ্গবন্ধু কুইজে অংশগ্রহণ করতে হলে আপনার প্রিয়.কমে একটি একাউন্ট লাগবে।

এই ক্ষেত্রে এই লিঙ্কে গিয়ে একটি একাইন্ট তৈরি করুন।

তারপর, আপনার ছবি, নাম, জন্ম তারিখ, ঠিকানা, ইত্যাদি সঠিক তথ্য দিয়ে প্রোফাইল আপডেট করুন।

তারপরে বর্তমান কুইজের প্রশ্ন দেখতে পাবেন। সেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে শেয়ার করুন।

সকল সঠিক উত্তরদ্বাতা দের মধ্যে থেকে লটারি করে বিজয়ীদের নির্বাচন করা হবে।

বঙ্গবন্ধু কুইজের ফলাফল কিভাবে জানবেন?

কুইজের রেজাল্ট বা বিজয়ীদের তালিকা একদিন পরে প্রিয়-ডট-কমে প্রকাশ করা হবে।

৫ জন বিজয়ী পাবেন একটি করে মোবাইল ফোন।

১০০ জন বিজয়ী পাবেন মোবাইল ডাটা।

প্রিয় কুইজের ফলাফল দেখুন এখানে।