হেডফোন এর দাম ২০২১ – প্রাইস ইন বাংলাদেশ

Headphone Price in Bangladesh 2021

বর্তমান যুগে হেডফোন ব্যাপক জনপ্রিয় একটি যন্ত্র। হেডফোনের অনেকগুলো সুবিধা রয়েছে। সাধারণত হেডফোন হচ্ছে একজোড়া স্পিকার। এই হেডফোন সাধারনত দুই ধরনের হয়ে থাকে, একটি শুধু কানে ব্যবহার করা যায়, আরেকটি কানের উপর মাথার চারপাশে পরিধান করা হয়। এগুলো হলো ইলেক্ট্রো কাস্টিক পরিবর্তক, একটি বৈদ্যুতিক সংকেত কে একটি অনুরূপ শব্দে রূপান্তর করে। এই হেডফোন এখন আমরা অনেক ধরনের যন্ত্রের সঙ্গে খুব সহজে ব্যবহার করতে পারি। তাই বলা যায় হেডফোন একটি  গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্র ।

হেডফোন এর প্রকারভেদ :

হেডফোন হচ্ছে একটি বর্তমানে ব্যাপক ব্যবহৃত যন্ত্র জামরা প্রত্যেকটা মানুষের কাছে প্রায়ই দেখতে পাই। আহত কি কি ধরনের হেডফোন হয় তা নিচে দেওয়া হল।

1. ওয়ারলেস হেডফোন

2. তার সহ হেডফোন

হেডফোন এর দাম ২০২১ - প্রাইস ইন বাংলাদেশ

হেডফোন এর দাম ২০২১ – প্রাইস ইন বাংলাদেশ

হেডফোন এর দাম ২০২১

২০২১ সালে হেডফোন এর দাম কেমন রয়েছে সেই বিষয়ে বিস্তারিত বর্ণনা করব। সময় পরিবর্তনের সাথে হেডফোনের দাম পরিবর্তন হয়ে থাকে। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দামে বিক্রি করে থাকে। আবার একই মডেলের হেডফোন সব সময় পাওয়া যায় না,  নতুন নতুন মডেল আসার কারণে দামের ভিন্নতা চলে আসে।  সুতরাং হেডফোনের দাম সম্পর্কে ধারণা দেওয়া খুব কঠিন।  তবুও ২০২১ সালে বাজারে রয়েছে এমন বেশ কয়েকটি পণ্যের দাম নিচে দেওয়া হল।

হেডফোন প্রাইস ইন বাংলাদেশ

এখন আমরা হেডফোন প্রাইস ইন বাংলাদেশ সম্পর্কে আলোচনা করব।  যে সকল ব্যক্তিরা সম্প্রতি হেডফোন ক্রয় করবেন বলে চিন্তা করছেন তারা আমাদের হেডফোন প্রাইস ইন বাংলাদেশ সম্পর্কে লেখা টি পড়তে পারেন। হেডফোনের প্রাইস টা মূলত বিভিন্ন ব্যান্ডের উপর ডিপেন্ড করে। উন্নত মানের ব্যান্ডগুলোন যেমন: আইফোন ব্লুটুথ হেডফোন, রিয়েল মি ব্লুটুথ হেডফোন, শাওমি ব্লুটুথ হেডফোন,  স্যামসাং ব্লুটুথ হেডফোন সনি হেডফোন ।এছাড়াও আমরা বর্তমান মার্কেটপ্লেসে সেরা পাঁচটি হেডফোনের নাম উল্লেখ করলাম।

১, লেনোভো ব্লুটুথ হেডফোন

২ p47 ব্লুটুথ হেডফোন

৩ শাওমি ব্লুটুথ হেডফোন এয়ার ডট

৪ লেনোভো এলপি 1 এস ব্লুটুথ হেডফোন

৫ AWEI T20ব্লুটুথ হেডফোন

হেডফোন এর দাম ২০২১ - প্রাইস ইন বাংলাদেশ

হেডফোন এর দাম ২০২১ – প্রাইস ইন বাংলাদেশ

তাই বলা যায় বাংলাদেশের প্রাইস হেডফোন গুলোর ব্যান্ডের উপর নির্ভর করে। এ থেকে আমরা সহজে বুঝতে পারছি হেডফোনের দাম  টা নির্ভর করে বিভিন্ন কোম্পানির ওপর। যে কোম্পানি যত উন্নত সেই হেডফোনের মূল্য ততই বেশি। তাহলে আমরা বুঝতে পারলাম হেডফোনের প্রাইস ইন বাংলাদেশ সম্পর্কে।

ব্লুটুথ হেডফোন এর দাম – প্রাইস ইন বাংলাদেশ 

এখন আমরা ব্লুটুথ হেডফোন এর দাম বা প্রাইস ইন বাংলাদেশ সম্পর্কে ধারণা লাভ করব।  ওয়ারলেস প্রযুক্তির হেডফোনের মধ্যে ব্লুটুথ হেডফোন অত্যান্ত জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বর্তমানে প্রায় 80% মানুষ ব্লুটুথ হেডফোন ইউজ করে। ব্লুটুথ হেডফোন এর দাম – প্রাইস ইন বাংলাদেশ সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে হলে আমাদের আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়তে হবে। নিচে বেশ কয়েকটি ব্লুটুথ হেডফোন দামসহ উল্লেখ করা হলো।

হেডফোন এর দাম ২০২১ - প্রাইস ইন বাংলাদেশ

হেডফোন এর দাম ২০২১ – প্রাইস ইন বাংলাদেশ

হেডফোন কোথায় কোথায় পাওয়া যায়:

এখন আমরা এই হেডফোন প্রায় সবখানেই পাওয়া যায়, এছাড়াও বিভিন্ন মোবাইল বিক্রেতা দোকানে পেয়ে থাকে । বিভিন্ন লোকাল মার্কেটগুলোতেও আমরা খুব সহজে হেডফোন পেয়ে থাকি। নন ব্যান্ড হেডফোন গুলো লোকাল মার্কেট থেকে অনেক কম দামেপাওয়া যায় এবং বিভিন্ন ইলেকট্রিক দোকানগুলোতেও বিভিন্ন কোয়ালিটির হেডফোন পাওয়া যায়। 

হেডফোন ব্যবহারের সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ:

সুবিধাসমূহ

হেডফোন ব্যবহারের সুবিধা বলতে আমরা বলতে বুঝি বর্তমান যুগে কল কারখানা যানবাহন, এ সমস্ত কারণে আমাদের বর্তমান সময় শব্দের গতিবেগ অনেক বেড়ে গেছে এক্ষেত্রে আমরা হেডফোনের দ্বারা কথা বা অন্য যেকোনো কারণেই হোক না কেন, এর দ্বারা আমরা স্পষ্ট শুনতে পাই বা কাজ করতে সুবিধা হয়, এরূপ হেডফোনের অনেক সুবিধা রয়েছে, তা আমরা সকলেই জানি আর এটা মূলত বর্তমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উপরে ব্যাপক নির্ভরশীল তাই সংক্ষেপে হেডফোনের ব্যবহারের সুবিধাগুলো তুলে ধরলাম।

অসুবিধা সমূহ:

হেডফোনে যেমন অনেকগুলো সুবিধা রয়েছে ঠিক তেমনি অনেকগুলো অসুবিধা রয়েছে। যখন আমরা হেডফোন ব্যবহার করি, তখন তো আমরা সরাসরি কানে ব্যবহার করে থাকি, এতে আমাদের শ্রবণশক্তি রাস পেতে থাকে। ইয়ারফোন ব্যবহারের সময় ইয়ারফোনের আওয়াজ সরাসরি আমাদের মস্তিষ্কে প্রবেশ করে, তাতেও বড় ধরনের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে । হেডফোন ব্যবহার করলে 90 ডেসিবেল বা তার বেশি মাত্রার আওয়াজ যদি আপনার কানে যায় তাহলে শ্রবণ এর জটিলতা ঘটতে পারে এবং এমনকি আপনি চিরতরে আপনার কানের কিছু ক্ষমতা হারাতে পারেন। তবে আপনার শ্রবণশক্তি যাতে নষ্ট না হয় , সেজন্য সব সময় হেডফোন ব্যবহার করা যাবে না এবং কক্ষনোই উচ্চ ভলিউমে গান বা অন্য কোন কিছুই শুনবেন না। এ থেকে আমরা বুঝতে পারি যে হেডফোনের সুবিধা চাইতে অসুবিধা গুলো অনেক। তাই আমরা যা রচনা করলাম তা সবাই মেনে চলি তাহলে আমাদের উপরে আলোচনা করা অসুবিধাগুলো আমরা মেনে চলি তাহলে উপরের সমস্যা গুলো আমাদের হবে না।

বর্তমান যুগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যে ব্যাপক উন্নতি তারই একটি অংশ এই হেডফোন। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমরা যতটুকু পেরেছি হেডফোন সম্পর্কে তা আলোচনা করেছি। বর্তমান যুগে হেডফোন এমন একটা যন্ত্র  যা আমরা অনেক সহজেই যেকোনো জায়গা থেকে এ থাকি। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতি হওয়ায় এখন আমরা যে কোন যন্ত্র খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারি। এরই একটি অংশ হেডফোন, এই হেডফোন আমরা আবার প্রযুক্তির কারণে বেশকিছু কোয়ালিটির পেয়ে থাকি যেমন, ব্লুটুথ হেডফোন, তার ছাড়া হেডফোন ,কম্পিউটার হেডফোন ওয়ারলেস হেডফোন ইত্যাদি। পরিশেষে বলা যায় বর্তমান সময়ে হেডফোন খুব সহজে আমরা পেয়ে থাকি এবং খুব সহজে হেডফোন ব্যবহার করতেও পারি।