রােগের নাম ও প্রতিরােধক টিকার চার্ট তৈরি কর।

0

রােগের নাম ও প্রতিরােধক টিকার চার্ট তৈরি কর। Class 8 Home Science 6th Week Assignment Answer. ক্লাস ৮ এর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান। Oshtom Srenir (Class8) Garhosto Biggan 6 Soptaher Assignment Er Uttor ba Somadhan. Class Eight 2nd & Last Domestic Science Assignment Solve 2020.

This question is taken from the fifth chapter of the eighth grade home science subject. This chapter warns about various diseases. We are affected by different diseases at different times. There are some diseases that we have been suffering from for a long time and there are some diseases that are completely new to us. Diseases like diarrhea, cold-cough, influenza, measles, tuberculosis, polio, myelitis etc. have been happening to us for a long time. We have vaccines and cures for these diseases. In that question we have been asked to create a disease name and immunization chart. Immunizations need to create a chart with the names of all the diseases that have been discovered. One thing to keep in mind, however, is that accurate information is presented when creating four.

রােগের নাম ও প্রতিরােধক টিকার চার্ট তৈরি কর।

এই প্রশ্নটিই অষ্টম শ্রেণীর গার্হস্থ্য বিজ্ঞান বিষয়ের পঞ্চম অধ্যায় থেকে নেওয়া হয়েছে। এ অধ্যায়ে বিভিন্ন রোগ সম্পর্কে সতর্ক করা হয়েছে। আমরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রোগ দ্বারা আক্রান্ত হয়ে থাকি। কিছু রোগ রয়েছে যেগুলো আমরা অনেক আগে থেকেই আক্রান্ত হই আবার কিছু রোগ রয়েছে যেগুলো আমাদের কাছে একেবারেই নতুন । ডায়রিয়া, সর্দি-কাশি, ইনফ্লুয়েঞ্জা, হাম, যক্ষা, পোলিও, মাইলাইটিস ইত্যাদি রোগ আমাদের অনেক আগে থেকেই হয়ে আসছে। এসব রোগের টিকা ও প্রতিকার আমাদের কাছে রয়েছে। উক্ত প্রশ্নে আমাদের রোগের নাম ও প্রতিরোধক টিকা চার্ট তৈরি করতে বলা হয়েছে। প্রতিরোধক টিকা আবিষ্কার হয়েছে এমন সকল রোগের নাম সহ প্রতিরোধক টিকা একটি চার্ট তৈরি করতে হবে। তবে একটি বিষয় মনে রাখতে হবে যেন চার তৈরির সময় সঠিক তথ্য উপস্থাপন করা হয়।

এ্যাসাইনমেন্ট / নির্ধারিত কাজ ২

২। রােগের নাম ও প্রতিরােধক টিকার চার্ট তৈরি কর।

২নং প্রশ্নের উত্তরঃ

রোগ প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্যসেবায় সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি ইপিআই একটি গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখযোগ্য ও সময়োপযোগী পদক্ষেপ আমাদের দেশের টিকাদান কর্মসূচির উদ্দেশ্য হচ্ছে শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার কমানো নিম্নে রোগের প্রতিষেধক টিকার দেয়া হলো-

রোগের নামপ্রতিষেধক টিকা
যক্ষ্মাবিসিজি টিকা
পোলিওওপিডি ওরাল পোলিও ভ্যাকসিন টিকা
ডিপথেরিয়া হুপিং কাশি ধনুষ্টংকার, হেপাটাইটিসবি, হিমোফাইল ইনফ্লেুয়েঞ্জা বিপেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন
হামহামের টিকা
ধনুষ্টংকারটিটি টিকা

 

এই প্রশ্নের বিকল্প বিস্তারিত উত্তরঃ

সক্ৰমণমুক্তকরণ টিকা, ইনজেকশন | ব্লোগ প্রতিকারের চেয়ে রােগ প্রতিরােধই উত্তম। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থসেবায় সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) একটি গুরুত্বপূর্ণ, উল্লেখযােগ্য ও সময় উপযােগী পদক্ষেপ। ইপিআই একটি বিশ্বব্যাপী কর্মসূচি যার মূল লক্ষ্য হচ্ছে সংক্রমণ ব্লোগ থেকে শিশুদের অকাল মৃত্য ও পঙ্গুত্ব ব্রোধ করা। তাই বিশ্বব্যাপী রোগ প্রতিরােধের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। এছাড়া ব্লোগ হওয়ার আগে প্রতিরােধ করা অনেক সহজ এবং কম ব্যয় সাপেক্ষ।

আমাদের দেশে টিকাদান কর্মসূচির উদ্দেশ্য হচ্ছে, শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার কমানাে। এক বছরের কম বয়সের শিশুদের রােগাক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি এবং বেশির ভাগ ব্লোগ এই বয়সেই হয়ে থাকে। তাই শিশুকে রােগ | প্রতিরােধক সব কয়টি টিকা নিয়মানুযায়ী যত তাড়াতাড়ি সব দিতে হবে ।

ইপিআই কর্মসূচির মাধ্যমে টিকা দিয়ে যে রােগগুলাে প্রতিরােধ করা যায় সেগুলাে হচ্ছে

বিসিজি টিকা – যক্ষ্মা রােগে বিসিজি টিকা দেওয়া হয়। এই টিকা দেওয়ার ২ সপ্তাহ পর টিকার স্থান লাল হয়ে ফুলে যায়। আরও ২/৩ সপ্তাহ পর শক্ত দানা, ক্ষত বা ঘা হতে পারে। ধীরে ধীরে এই ক্ষত বা ঘা শুকিয়ে যায়, দাগ থাকে। জন্মের পরই এই টিকা দেওয়া হয়।

ওপিভি টিকা – ওপিভি (ওরাল পােলিও ভ্যাকসিন) টিকা পােলিও (পােলিও মাইলাইটিস) রােগ প্রতিরােধ করে। জন্মের পর ৬ সপ্তাহের মধ্যে ১ম ডােজ, ২৮ দিন পর ২য় ডােজ, পরবর্তী ২৮ দিন পর ৩য় ডােজ এবং ৯ মাস পূর্ণ হলে ৪র্থ ডােজ দিতে হয়।

পেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন – এই টিকা ৫টি রােগ যেমন- ডিপথেরিয়া, হুপিংকাশি, ধনুষ্টংকার, হেপাটাইটিস-বি এবং হিমােফাইলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা-বি প্রতিরােধ করে। জন্মের ৬ সপ্তাহ পর প্রথম ডােজ এবং ২য় ও ৩য় ডােজ ২৮ দিন অন্তর অন্তর দিতে হয়।

হামের টিকা – হামের টিকা শিশুকে হাম রােগ থেকে প্রতিরােধ করে। শিশুর বয়স ৯ মাস পূর্ণ হলে এই টিকা দিতে হয়।

টিটি টিকা (টিটেনাস টক্সয়েড) – টিটি টিকা ধনুষ্টংকার রােগ থেকে রক্ষা করে। ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সের সকল মহিলাকে এবং যে সকল শিশুর ডিপিটি/পেন্টাভ্যালেন্ট টিকা দেওয়ার পর খিচুনি হয়েছে তাদের এই টিকা দিতে হবে।

Class 8 Home Science 6th Week Assignment Answer

Posted new comment

very nice answers…and all are correct. Thank you very much for the answers.

Add a Comment
Write your answer.